25 Nov 2017 - 12:34:50 am

চিলাহাটি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটির বেহাল দশা: উন্নয়ন প্রয়োজন

Published on বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০১৬ at ৩:৪৩ অপরাহ্ণ
Print Friendly, PDF & Email

নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার চিলাহাটি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি বেহাল দশা। চিলাহাটি অঞ্চলে প্রায় দেড় লাখ লোকের বাস। এখানে একটি সরকারী উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র ও একটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র রয়েছে কিন্তু স্থায়ী কোন এমবিবিএস ডাক্তার নেই। অস্থায়ী চিকিৎসক দিয়েই চালাতে হয় চিকিৎসা। অথবা উপয়ান্ত না দেখে বাজারের ওষুধের দোকান থেকে অসুখের কথা বলে দোকানদারগণ যা দেন তাই ভরসা। কোন গুরুতর ব্যক্তির তাৎক্ষণিক চিকিৎসা নিতে গেলে ২৫/৩০কি.মি. ভাঙ্গাচোড়া পথ পেরিয়ে ডোমার উপজেলা শহর অথবা পঞ্চগড় জেলাধীন দেবীগঞ্জ উপজেলা শহরে যেতে হয়। কিন্তু চিলাহাটি ! ডোমার বা দেবীগঞ্জের চেয়ে কোন অংশে কম নয়। তবু এখানে কোন রকম চিকিৎসা সেবার জন্য স্থায়ী কোন চিকিৎসক নেই।

চিলাহাটি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটির বেহাল দশা: উন্নয়ন প্রয়োজন

চিলাহাটি এলাকার মানুষের ভাষ্য, মানুষের মৌলিক অধিকারের মধ্যে চিকিৎসা সেবাও একটি। কিন্তু চিকিৎসা সেবা যদি ওষুধের  সীমাবদ্ধ থাকে তাহলে তো সাধারণ জনগণের বেহাল দশা হবে। যা একটি সমাজকে ধ্বংস করে দিতে পারে।

চিকিৎসা সেবার কথা বলতে গিয়ে এলাকার সচেতন মহলের ভাষ্যে, সরকারী মহাবিদ্যালয়ের মতো চিকিৎসকগণও স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে থাকতে চান না। তাঁরা এসে শুধু পালাই পালাই অবস্থায় থাকেন। কারণ, চিলাহাটিতে চিকিৎসা ব্যবসা করার মতো তেমন কোন জায়গা নেই।

এব্যাপারে চিকিৎসকের সাথে কথা বললে, ডাক্তারগণ পালাই পালাই করে না। তবে সরকারী চাকুরী করলে তো যেখানে সরকার বদলী করে দেবেন সেখানেই যেতে হবে। তবে হ্যাঁ, প্রত্যন্ত অঞ্চলে গেজেটেড অফিসাররা থাকতে চান না। আর যারা থাকে, তারা স্থানীয় বলেই।

এদিকে চিলাহাটি ভোগডাবুরী ইউনিয়ন চিলাহাটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে যে জনবল থাকার কথা তা নেই। শুধুমাত্র ১জন পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা ছাড়া কেউ নেই। আবার মাঠ পর্যায়ে মাত্র ৬জন পরিবার কল্যাণ সহকারী (এফডব্লিউএ) ছিলেন। তাও আবার অবসরে গিয়ে এখন আছেন মাত্র ৪জন।

চিলাহাটি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এসএসিএমএ ছাড়া কোন জনবল এখানে নেই। ১জন এমবিবিএস থাকার কথা থাকলেও এখানে না থেকে তিনি বোড়াগাড়ী হাসপাতালে আছেন।

চিলাহাটিবাসী স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নতকরণ এবং চিলাহাটিতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক রাখার জন্য সরকারের উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের নিকট আশু সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। এলাকাবাসীর পক্ষে আবু ছাইদ।

Print Friendly, PDF & Email