24 Oct 2017 - 02:47:55 am

রাজারহাটের নাজিম খানে সোপানের আয়োজনে শিক্ষায় উদ্বুদ্ধকরণ সেমিনার অনুষ্ঠিত

Published on বুধবার, জুন ২৮, ২০১৭ at ৯:৩২ অপরাহ্ণ
Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিবেদক, রংপুর:  সোপান বিশ্ববিদ্যালয় পড়য়া শিক্ষার্থীদের সংগঠন। সোপানের আয়োজনে নাজিম খান উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে উদ্বুদ্ধকরণ বিষয়ক সেমিনার।  স্কুল মাঠে  আজ সকাল ১০টায় অনুষ্ঠানটি শুরু হয়।

রাজারহাটের নাজিম খানে সোপানের আয়োজনে শিক্ষায় উদ্বুদ্ধকরণ সেমিনার অনুষ্ঠিতআয়োজনের শুরুতে সংগঠনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদানের করেন সোপানের সভাপতি অমৃত কুমার মন্ডল। এরপর সংগঠকবৃন্দ তাঁদের পরিচয় প্রদান করেন। পরিচিতি প্রদান শেষে শুরু হয় কৃতি শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্যানেল ডিসকাশন। প্রাণবন্ত আলোচনার শুরুতে আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দকে স্বাগত জানিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন নাজিম খান উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী প্রধান শিক্ষক জনাব মোহাম্মদ আইয়ুব আলী এবং নাজিম খান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মোহাম্মদ আতাউর রহমান। “শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ ও পেশা নির্বাচন” শীর্ষক প্যানেল ডিসকাশনে অংশগ্রহণ করেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত প্রকৌশলী মোহাম্মদ শামসুল আবেদীন রানু। তিনি জানিয়েছেন, “স্কুলের সার্বিক উন্নয়নের স্বার্থে একটি শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ গঠন করতে হবে। এর মাধ্যমেই স্কুলে ভাল ফলাফলের ধারাবাহিকতা থাকবে।” এই আলোচনায় উৎসাহ প্রদান করেন স্থানীয় সরকার ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব জনাব মোহাম¥দ এরশাদুল হক। তিনি বক্তব্যে বলেছেন “স্কুল অনেক কৃতি শিক্ষার্থী তৈরি করেছে। আমরা সবাই মিলে স্কুলের এবং এলাকার উন্নয়ন করতে চাই।” আলোচনায় বক্তব্য প্রদান করেন উক্ত প্রতিষ্ঠানের সফল শিক্ষার্থী জাহিদ হাসান। তিনি সাব রেজিস্টার হিসেবে চাকুরিরত।

রাজারহাটের নাজিম খানে সোপানের আয়োজনে শিক্ষায় উদ্বুদ্ধকরণ সেমিনার অনুষ্ঠিতদ্বিতীয় পর্বের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গুণী শিক্ষকবৃন্দ। “শত প্রতিকূলতা বিজয়ী অদম্য মেধাবী শিক্ষার্থীর গল্প” শীর্ষক প্যানেলে তাঁরা মেধাবী শিক্ষার্থীদের গল্প শুনিয়েছেন যারা চরম দারিদ্রতায় হার না মেনে এগিয়ে গেছে, শিক্ষা অর্জন করে ব্যক্তি জীবনে সাফল্য অর্জন করেছেন। মনোমুগ্ধকর আলোচনায় ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মহোদয়গণ। আলোচনা করেছেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুরের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তুহিন ওয়াদুদ। তাঁর বক্তব্যে শিক্ষার্থীরা বেশ প্রাণোদীপ্ত হয়েছিল। তিনি বক্তব্যে বলেন,“আমি তোমাদের উপদেশ বা পরামর্শ দিব না। তোমার যা হতে চাও তাই কর।” আলোচনায় কথা বলেছেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. নজরুল ইসলাম। তিনি আয়োজনে মুগ্ধতার কথা উল্লেখ করে জানিয়েছেন, “মাধ্যমিকের শিক্ষকরা আমাকে তৈরি করেছেন। আজকে আমি তাঁদের সামনে কথা বলছি। এটি অনুপ্রাণিত করবার মত। সবাই অনুপ্রাণিত হলে আজকের অনুষ্ঠানটি স্বার্থক হবে।” বাংলাদেশ টেক্সাটাইল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকার প্রভাষক হারুন অর রশিদ তার উপস্থাপিত বক্তব্যে বলেছেন, “শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষক জাতি মনন গঠন করে। আজকের আয়োজনটি আমাকে উদ্বেলিত করেছে।” পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা ও উপস্থাপনা করেছেন রক্তিম মিলন।

আয়োজনটি শেষ হয় জনাব আইয়ুব আলীর সমাপনির বক্তব্যের মধ্য দিয়ে। সমাপনি বক্তব্যে তিনি সংগঠনের দুই বছর মেয়াদী কমিটি ঘোষণা করেন। আয়োজনের পূর্বে কাউন্সেিল সভাপতি নির্বাচিত হয়েছে অমৃত কুমার মন্ডল, সহ-সভাপতি আনিছুর রহমান,  সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হামিদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সজীব কুমার, কোষাধ্যক তাজুল ইসলাম।

Print Friendly, PDF & Email