কবি নুসরাত রুমুর কাব্যচিঠি “শোকে বিহবল”
১৪ আগ '১৭
0 Shares

কবি নুসরাত রুমুর কাব্যচিঠি “শোকে বিহবল”

কবি নুসরাত রুমুর কাব্যচিঠি "শোকে বিহবল"শোকে বিহবল

-নুসরাত রুমু
—————

প্রিয় বঙ্গবন্ধু,
মানবতার বিয়োগে বিধুর হয়ে আজ তোমাকে এই চিঠি লিখতে বসেছি।
জন্মের পর থেকে তোমার উত্থিত আঙুল দেখে তৈরি করেছি নির্ভীক সত্তা। বাঙালি সইবেনা বঞ্চনা, থাকবেনা করুণাশ্রয়ীর মত, অবিচার আর শোষণের তীব্র প্রতিবাদ শুনেছি তোমার বজ্রকণ্ঠে।
দিকভ্রান্ত, নির্জীব মানুষকে শাণিত করলে তুমি,স্বাধীনতার নাবিক হয়ে নোঙর তুলেছিলে সেই একাত্তরে —-
নয় মাসের যুদ্ধে লাখো শহিদের রক্ত আর মা – বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এসেছিল প্রত্যাশিত স্বাধীনতা। মান চিত্র খচিত পতাকা উড়িয়ে সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিল তোমার তৃষিত হৃদয়।
কুচক্রীরা তোমাকে সেই সময় দেয়নি অবশেষে।
বিক্ষুদ্ধ বুলেটের আক্রোশে তোমার রক্ত লেগে আছে আজও
ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের বাড়ির দেয়ালে।
জাতি হয়েছিল শোকে মূহ্যমান।

এত বছরে সেই বিমর্ষ জাতির আজ চেতনার ব্যবচ্ছেদ ঘটেছে। প্রতারণার আখড়া হয়ে গেছে সেই স্বপ্নের সোনার বাংলা।
লিপ্সার বৃষ্টি ডুবিয়ে দিচ্ছে সবার বিবেক।
দূর্নীতির দমকা হাওয়ায় ছিঁড়েছে সততার পাল।
কৃত্রিম আবেগের কাছে তোমার নন্দিত ইচ্ছেগুলোর দাফন হয়ে গেছে হে নাবিক।
শরতের কাশফুল দেখে যুবকেরা ভাবুক হয়না বরং সেটাকে দুমড়ে মাড়িয়ে চলে যায় উন্মাদ চোখে।
একাত্তরের হায়েনার মত নারীর সম্ভ্রম আজ খুবলে খাচ্ছে পথভ্রষ্ট কামার্তের দল। বিষাদের বসতভিটার অস্তিত্বে তীব্র সংকট লেগেছে।
বিচ্যুতির এই গ্রহণের কালে তোমাকে আবার বড় প্রয়োজন হে চির ভাস্বর।
উদয়ের বাণী নিয়ে তুমি আসবে —
এই প্রতীক্ষায় রোদন করছি সফেদ মনের কলঙ্কিত জাতি। তোমার কীর্তিকে জানাই লাখো সালাম।
হাজার বঙ্গবন্ধু হয়ে প্রতিটি মায়ের ক্রোড়ে বিশুদ্ধ চেতনা নিয়ে ফিরে এস তুমি। এই কামনায় শেষ করছি।

—আমি বাংলার প্রতিবাদী নারী।

 

Print Friendly, PDF & Email

About dimlanews

Related Posts

    No posts found.

Leave a Reply

*

সম্পাদকের বক্তব্যঃ

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম ভিজিট করুন এবং বিজ্ঞাপন দিন।