21 Nov 2017 - 02:53:00 am

বাঁশখালীর এক মাদ্রাসা শিক্ষকের বাঁচার আকুতি

Published on বুধবার, আগস্ট ৩০, ২০১৭ at ৬:২০ অপরাহ্ণ
Print Friendly, PDF & Email

মোঃ আবদুর জব্বার বাঁশখালী (চট্টগ্রাম): শিক্ষক নসরুল্লাহ আল মাহমুদশিক্ষক নসরুল্লাহ আল মাহমুদ। পেশায় একজন শিক্ষক। দীর্ঘ পনের বছর শিক্ষকতা করে যাচ্ছেন। দু‘বছর আগে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। শরনাপন্ন হন চিকিৎসকের। অনেক পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর চিকিৎসক জানালেন ফুসফুসে ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। চিকিৎসক পরামর্শ দিয়েছেন দেশের বাহিরে যেতে উন্নত চিকিৎসার জন্য। তবে দীর্ঘ দুই বছর চট্টগ্রাম ও ঢাকার বিভিন্ন বিশেষজ্ঞ চিকিসিকের নিকট চিকিৎসা নিতে নিতেই নিঃস্ব হয়ে পড়েন তিনি। হারিয়ে ফেলেন সব সহায় বাঁশখালীর এক মাদ্রাসা শিক্ষকের বাঁচার আকুতিসম্বল। এখন বাকি আছে মাত্র বাবার এক টুকরো ভিটে মাটি। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের বক্ষ ব্যাধি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, সহকারী অধ্যাপক ডাঃ সরোজ কান্তি চৌধূরী বলে দিয়েছেন, নসরুল্লাহ আল মাহমুদের দ্রুত উন্নত চিকিৎসা দরকার। এই জন্য ভারতের মাদরাজ যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। একই পরামর্শ দেন ঢাকার শ্যামলী সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডাঃ রাশেদুল হাসান। চিকিৎসকরা পরামর্শ দিলেও শিক্ষক নসরুল্লাহ আল মাহমুদের উন্নত চিকিৎসায় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে অর্থ সংকট। চিকিৎসকরা দ্রুত দেশের বাহিরে যাওয়ার পরামর্শ দিলেও অর্থ সংকটে প্রায় পাঁচ মাস বিছানায় পড়ে আছেন। আর ক্যান্সার ক্রমশ দিন দিন গিলে খাচ্ছে পুরো ফুসফুসকে। নসরুল্লাহ আল মাহমুদের পরিবারের সাথে আলাপ করে জানা যায়, নাসরুল্লাহ আল মাহমুদ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া আলমশাহ পাড়া কামিল মাদরাসা থেকে ১৯৯৮ সালে প্রথম বিভাগে কামিল পাশ করেন। আর তখনই যোগদেন শিক্ষকতা পেশায়। ২০০২ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত আরবী প্রভাষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন, বান্দরবানের লামা ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায়। এর পর নিজ এলাকা বাঁশখালী উপজেলার জলদি হোসাইনিয়া ফাজিল মাদরাসায় আরবী প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। ২০১৬সালের শেষে দিকে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। নসরুল্লাহ আল মাহমুদের স্ত্রী জোবায়দা আক্তার বলেন, ১০ বছরের আফিফা তাবাচ্ছুম নাওরীন, ৮ বছরের নাজিফা তারান্নুম নাওশীন আর আড়াই বছরের নাওশাদ আল মাহমুদ এর দিকে তাকিয়ে হলেও বিত্তবানরা একটু এগিয়ে আসেন। একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। আপনার সামাস্য সাহায্যে সুস্থ হয়ে উঠতে পারে একটি জীবন। আর এতে অবুঝ তিন শিশু ফিরে পাবেন তাদের পৃথিবী। শিক্ষক নাসরুল্লাহ আল মাহমুকে সাহায্য পাঠাতে পারেন। নসরুল্লাহ আল মাহমুদ, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক, হিসাব নম্বর- ১৯৬৩ এবং ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এ হিসাব নম্বর -০১৮১৬০৮৮০৬১১, অথবা বিকাশ ব্যক্তিগত নাম্বার- ০১৭১৬৭৬৪৩৫০।

Print Friendly, PDF & Email