• Home »
  • আইন-আদালত »
  • নোয়াখালীতে অপহৃত স্কুলছাত্রী হাটহাজারীতে উদ্ধার, দম্পতি আটক
৩১ আগ '১৭
0 Shares

নোয়াখালীতে অপহৃত স্কুলছাত্রী হাটহাজারীতে উদ্ধার, দম্পতি আটক

আবুল বাশার, হাটহাজারী হাটহাজারী(চট্টগ্রাম) সংবাদদাতাঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে অপহৃত এক স্কুল ছাত্রীকে হাটহাজারী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। হাটহাজারী থানা পুলিশ নাদিয়া আরফিন দোলনকে (৮) নামের এ ছাত্রীকে উদ্ধারের সময় আটক করেছে অপহরণকারী দম্পতি শাহনাজ আক্তার পারভীন ওরফে পাখি (১৯) এবং নূর ইসলাম হৃদয় (২৩)কে । জানা গেছে , দোলন শনিবার স্কুল নোয়াখালীতে অপহৃত স্কুলছাত্রী হাটহাজারীতে উদ্ধার, দম্পতি আটকথেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয় । সে সোনাইমুড়ী থানার ওমান প্রবাসী মো. দুলাল হোসেনের মেয়ে এবং পতিশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২য় শ্রেণির ছাত্রী। দোলনের চাচা মো. আলাউদ্দিন জানান, শনিবার দুপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয় দোলন। ওইদিন বিকেলে পাখি এবং হৃদয় মোবাইল ফোনে জানায় দোলনকে জীবিত ফেরত পেতে হলে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দিতে হবে। এর পর থানায় জিডি করেন তারা। তাকে উদ্ধার করা না গেলে তিনি বুধবার র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। র‌্যাব-৭ কল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে হাটহাজারীতে পাখি এবং হৃদয়ের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে হাটহাজারীর উপজেলার লোহারপুল এলাকায় একটি বিকাশের দোকান থেকে তাদের আটক । পাখি সোনাইমুড়ি পতিশ এলাকার আজিজ পাটোয়ারি বাড়ির মো. শফিউল্লাহর মেয়ে এবং দোলনের ফুফাত বোন। হৃদয় লক্ষ্মীপুরের রামগতি থানার চরটিকার আকাব্বর সওদাগর বাড়ির আনিসুর রহমানের ছেলে বলে জানা গেছে। পাখি ও হৃদয় জানায় , ‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌”আমরা খেলনা কিনে দেওয়ার নাম করে দোলনকে অপহরণ করে প্রথমে কুমিল্লায় নিয়ে যাই। আটক হওয়ার ভয়ে সেখান থেকে ট্রেনে চট্টগ্রামে চলে আসি। পরে দোলনকে নিয়ে হাটহাজারীতে এক আত্মীয়ের বাসায় যাই।” হাটহাজারী থানার ওসি মো. বেলাল উদ্দিন জানান, “র‌্যাব-৭ এর সহযোগিতায় পাখি এবং হৃদয়কে আটক করা হয়েছে। দোলনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে সোমাইমুরী থানায় হস্তান্তর করা হবে।”

Print Friendly, PDF & Email

About dimlanews

Related Posts

    No posts found.

Leave a Reply

*

সম্পাদকের বক্তব্যঃ

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম ভিজিট করুন এবং বিজ্ঞাপন দিন।