• Home »
  • সারাদেশ »
  • দামুড়হুদায় কার্পাসডাঙ্গায় পাওনা টাকা না পেয়ে বাড়ি ঘর ভংচুরঃ ফাঁড়িতে অভিযোগ
দামুড়হুদায় কার্পাসডাঙ্গায় পাওনা টাকা না পেয়ে বাড়ি ঘর ভংচুরঃ ফাঁড়িতে অভিযোগ
৩ মার্চ '১৮

dimlanews

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম এর প্রকাশিত সংবাদ গুলো পড়ুন এবং মন্তব্য করুন।

0 Shares

দামুড়হুদায় কার্পাসডাঙ্গায় পাওনা টাকা না পেয়ে বাড়ি ঘর ভংচুরঃ ফাঁড়িতে অভিযোগ

দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) থেকে সালেকীন মিয়া সাগর: দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গায় পাওনা টাকা না পেয়ে বারিক উদ্দীন ও তার স্ত্রী হালিমা খাতুন একই পাড়ার স্বামী পরিত্যাক্তা রাবেয়া খাতুন (পুটলী) এর নির্মাণাধীন ঘর ভাংচুর করেছে । দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের মিশন পাড়ায় শনিবার দুপুর ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে কার্পাসডাঙ্গা ফাঁড়ির আইসি আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সত্যতা পান।
দামুড়হুদায় কার্পাসডাঙ্গায় পাওনা টাকা না পেয়ে বাড়ি ঘর ভংচুরঃ ফাঁড়িতে অভিযোগপুলিশ, এলাকাবাসী ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার এই প্রতিবেদককে জানায়,স্বামী পরিত্যাক্তা রাবেয়া খাতুন(পুটলী) তার বাড়িতে পাকা বসতঘর নির্মাণ করছিল। শনিবার দুপুর ২টার দিকে মিশ পাড়ার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী বারিক ও তার স্ত্রী হালিমা আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে এই সময় বাধা দিতে গিলে আমাকে ও আমার ছেলে মারধর করে। বাড়িতে অবস্থান মিস্ত্রীরা ঘটনা উতপ্ত হওয়ার আগেই হালিমাকে বাধা দেয় এবং বাড়ির ভিতর আটকিয়ে রেখে পুলিশকে ফোন করে। ঘটনাক্রমে জানা, হালিমা রাবেয়া(পুটলীর) নিকট ২৫ হাজার টাকা পায়।অভিযুক্ত হালিমার দাবি রাবেয়ার কাছে ২৫ হাজার টাকা পায় সে। অনেক দিন ধরে চাওয়ার পর সে টাকা বের করছে না বিধায় সে বাড়ি ঘর ভাংচুর চালিয়ে টাকা আদায়ের চেষ্টা চালাচ্ছে।
এদিকে রাবেয়া (পুটলীর) কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে ,সে জানায় হালিমার তার কাছে ২৫ হাজার টাকা পাবে আমার টাকা দিতে কয়েকদিন সময় লাগবে জানালে ও সে আমার কথা শুনেনি। আমার বাড়ি ঘর নির্মাণ করা দেখে সে ঈর্ষান্তিত হয়ে আমার উপর হামলা চালিয়ে বাড়ি, ঘর, আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে। এর আগে ও সে আমার উপর হামলা চালিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করেছে। আজ দুপুরে আমি কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ করেছে।
হামলা বিষয়টি নিয়ে কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির আইসি আসাদুজ্জামান জানান,আমি নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি এবং হামলার ঘটনা নিজে দেখেছি। তবে পরবর্তী কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা না করার জন্য উভয় পক্ষকে করা হুশিয়ারি করা হয়েছে। দেনা পাওনার বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়ার জন্য উপদেশ দেওয়া হয়েছে।
গোপনসূত্রে খবর মিলেছে যে হালিমা ও তার স্বামী বারিক এলাকার কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী। এলাকায় যতপ্রকার মাদকের কারবার হয় সব তার দ্বারা। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক আমলে নেওয়ার জন্য প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ করছে এলাকার সচেতন ও সুধী মহল

 

Print Friendly, PDF & Email

About dimlanews

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম এর প্রকাশিত সংবাদ গুলো পড়ুন এবং মন্তব্য করুন।

Related Posts

Leave a Reply

*

সম্পাদকের বক্তব্যঃ

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম ভিজিট করুন এবং বিজ্ঞাপন দিন।