বিপিএলের এবারের আসর আগের আসরগুলোর তুলনায় পুরোপুরি ব্যতিক্রম। কারণ এবার ফ্রাঞ্চাইজি নেই। বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে এই আসরের নামকরণ করা হলো বঙ্গবন্ধু বিপিএল। পুরো টুর্নামেন্টের একক মালিকানা এবার বিসিবির কাছে। দল পরিচালনা থেকে শুরু করে টুর্নামেন্ট আয়োজন, সব কিছুই করবে তারা।

নতুন ফরম্যাটের টুর্নামেন্টের ৭টি দলের নামকরণ ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে। ৫টি দলকে তুলে দেয়া হয়েছে ৫টি সহযোগী স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের হাতে। দলগুলোর প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে একজন করে বিসিবি পরিচালককে।

এরই মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়ে গেছে বিপিএলের প্লেয়ার ড্রাফটও। শুধু তাই নয়, কোচিং স্টাফ নিয়োগ দেয়া থেকে শুরু করে অনেক কাজই শেষের পর্যায়ে। এখন শুধু টুর্নামেন্ট মাঠে গড়ানোর অপেক্ষা।

নির্ধারিত সময় অনুযায়ী, ১১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে বিপিএলের এবারের আসর। যদিও তার তিনদিন আগে, ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। যেখানে উপস্থিত থেকে বিপিএলের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

টুর্নামেন্টের অন্যতম বড় একটি কাজও আজ শেষ করে ফেললো বিসিবি। ঘোষণা করা হয়েছে বিপিএলের সূচি। ঘোষিত সূচি অনুসারে প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। একটি দিনের আলোয়, আরেকটি অনুষ্ঠিত হবে ফ্লাড লাইটের আলোয়।

প্রতিদিন প্রথম ম্যাচ শুরু হবে দুপুর সাড়ে ১২টায়। শেষ হবে ৩টা ৫০ মিনিটে। দ্বিতীয় ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা ৫টা ২০মিনিটে। শেষ হবে রাত ৮টা ৪০ মিনিটে। তবে শুক্রবার থাকবে ব্যতিক্রম। এদিন প্রথম খেলা শুরু হবে দুপুর ২টায়। শেষ হবে ৫টা ২০ মিনিটে। দ্বিতীয় ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা ৭টায়। শেষ হবে রাত ১০টা ২০ মিনিটে।

১১ ডিসেম্বর বুধবার উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে চট্টগ্রাম এবং সিলেট। মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুপুর ১২.৩০টায় শুরু হবে ম্যাচটি। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স মাঠে নামকে রংপুর রেঞ্জার্সের বিপক্ষে।

মোট তিন ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে এবারের বিপিএলের খেলা। ঢাকার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম এবং সিলেটের লাক্কাতুরায় অবস্থিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

১১, ১২, ১৩, ১৪ ডিসেম্বর- এই চারদিন খেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর বিপিএল চলে যাবে চট্টগ্রামে। সেখানে ১৭, ১৮ ডিসেম্বর খেলা হওয়ার পর একদিন বিরতি দিয়ে ২০, ২১ ডিসেম্বর এরপর আরও একদিন বিরতি, সর্বশেষ ২৩, ২৪ ডিসেম্বর খেলা হওয়ার পর বিপিএল আবার ফিরে আসবে ঢাকায়।

ঢাকায় দ্বিতীয় পর্বে ২৭, ২৮, ৩০ ও ৩১ ডিসেম্বর খেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর টুর্নামেন্ট চলে যাবে সিলেটে। সেখানে ২, ৩ ও ৪ জানুয়ারি খেলা অনুষ্ঠিত হবে টানা তিনদিন। এরপর টুর্নামেন্ট ফিরে আসবে আবার ঢাকায়। এই পর্বে রাজধানীতে খেলা অনুষ্ঠিত হবে ৭, ৮, ১০, ১১ জানুয়ারি।

গ্রুপ পর্ব শেষ হয়ে যাবে ১১ জানুয়ারি। ১৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে এলিমিনেটর এবং ১ম কোয়ালিফায়ার রাউন্ড। একদিন বিরতি দিয়ে ১৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। এরপর ১৭ জানুয়ারি শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে বিপিএলের জমজমাট ফাইনাল।

উল্লেখ্য, কোয়ালিফায়ার রাউন্ড এবং ফাইনালের জন্য একদিন করে রিজার্ভ ডে নির্ধারিত করা আছে। ইলিমিনেটর ম্যাচের জন্য কোনো রিজার্ভ ডে নেই।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (এ+), ইমরুল কায়েস (এ), নাসির হোসেন (সি), রুবেল হোসেন (বি), ক্রিস গেইল (এ+), ক্যাসরিক উইলিয়ামস, কাজী নুরুল হাসান সোহান, এনামুল হক জুনিয়র, মুক্তার আলী (সি), পিনাক ঘোষ, আভিষ্কা ফার্নান্দো, রিয়াদ এমরিত, নাসুম আহমেদ।

সিলেট থান্ডার্স: মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন, নাজমুল ইসলাম অপু (বি), সোহাগ গাজী, শাফিন রাদারফোর্ড, শফিকুল্লাহ শাফাক, রনি তালুকদার, নাঈম হাসান (বি), দেলওয়ার হোসেন, মনির হোসেন খান (সি), নবীন উল হক, জনসন চার্লস, রুহেল মিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here