মিজানুর রহমান মিলন,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়িতে পুলিশের চোঁখকে ফাঁকি দিয়ে ফেনসিডিল নিয়ে পালানোর সময় মো. মিনহাজুল ইসলাম (২৩) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে ফুলবাড়ি থানা পুলিশ। এসময় তাঁর কাছ থেকে ৭৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে তার ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল। আজ মঙ্গলবার সকালে ফুলবাড়ি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে ওইসব ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, ফুলবাড়ি থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক মো.হাসিবুল সকালে উপজেলা পরিষদের দিকে যাওয়ার সময় নাম্বারবিহীন কালো রঙের হোন্ডা লিভো ব্রান্ডের মোটরসাইকেল আরোহীকে দেখতে পায়। এসময় ওই মোটরসাইকেল আরোহী পুলিশকে দেখতে পেয়ে তাঁর গাড়ির গতি বাড়িয়ে দিলে এএসআই হাসিবুলের সন্দেহ হয়। এ তিনিও তাঁর মোটর সাইকেলের গতি বাড়িয়ে ওই মোটরসাইকেল আরোহীর গতিরোধ করেন। এসময় স্থানীয়দের উপস্থিতিতে তাঁর ব্যাগ তল্লাশী করা হলে সেখানে ফেনসিডিলের অস্তিত্ব মেলে। খবর পেয়ে ফুলবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ফখরুল ইসলামসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌছে ওই ব্যাগ থেকে ৭৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেন। আটক করা হয় হাকিমপুর উপজেলার বড়চড়া গ্রামের মোহাম্মদ আলীর পুত্র মাদক ব্যবসায়ী মো. মিনহাজুল ইসলামকে। এসময় মাদক বহন করা তার ব্যবহৃত নাম্বার বিহীন হোন্ডা লিভো ব্রান্ডের মোটর সাইকেলটি জব্দ করা হয়। এব্যাপারে ফুলবাড়ি থানায় আজ মাদক আইনে একটি মামলা হয়েছে।ফেনসিডিলসহ আটক মাদক ব্যবসায়ীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে জানায় ওইসব ফেনসিডিল পার্বতিপুর উপজেলার ভবানীপুরে নিয়ে যাচ্ছিল।
জানতে চাইলে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফখরুল ইসলাম মাদক উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন থানার উপ-সহকারি পরিদর্শক হাসিবুল যে বিচক্ষণতায় পরিচয় দিয়েছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়।
এব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় ওই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার দেখিয়ে তাঁকে দিনাজপুর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।
প্রসঙ্গত: এএসআই হাসিবুল চলতি সপ্তাহে বেশ কয়েকটি অভিযান চালিয়ে প্রায় চার শত বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছেন বলে জানা গেছে।

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here