মিজানুর রহমান মিলন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুরে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোচিং চালু রাখার দায়ে দুই কোচিং সেন্টারের পরিচালকের ছয় হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়েছে।আজ বুধবার শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে কোচিং সেন্টার চালু রাখার প্রমাণ পায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে ওই দুটি কোচিং সেন্টারের পরিচালককে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে গতকাল মঙ্গলবার থেকে সরকার দেশের সকল স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসা ও কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করেন। এ নির্দেশনা জারির পর সৈয়দপুরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান -গুলো বন্ধ থাকলেও শহরে কিছু কোচিং সেন্টার চালু রাখেন কোচিং সেন্টারের পরিচালকরা। ফলে আজ বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকারের নেতৃত্বে শহরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে শহরের কুন্দল এলাকায় সৈয়দপুর সরকারি কলেজের প্রধান ফটক সংলগ্ন মারুফ হিসাব বিজ্ঞান প্রাইভেট সেন্টার এবং শহরের দারুল উলুম মাদ্রাসা মোড় এলাকার ইংলিশ টিউটোরিয়াল হোম নামের দুইটি কোচিং সেন্টার চালু অবস্থায় পান অভিযান পরিচালনাকারী দল। এ সময় দেখা যায় ওই দুইটি কোচিং সেন্টারে শিক্ষার্থীদের কোচিং করানো হচ্ছে। এ অবস্থায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোচিং সেন্টার চালু রাখার অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে মারুফ হিসাব বিজ্ঞান প্রাইভেট সেন্টারের পরিচালক মো. মারুফ হোসেন জনির এক হাজার টাকা এবং ইংলিশ টিউটোরিয়াল হোম এর পরিচালক প্রভাষক মো. মশিউর রহমানের পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
অভিযানকালে সৈয়দপুর উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মো. আনোয়ার হোসেন, উপজেলা ভূমি অফিসের অফিস সহকারী শাহ্ সুফী আমানত, সৈয়দপুর থানার সহকারি উপ পরিদর্শক মো. নুর আমিনসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার বলেন, কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তিস্তা নিউজের নিউজ রুম থেকে সমস্ত বিভাগসহ বাংলাদেশের সর্বশেষ সংবাদ প্রকাশ করা হয়। আপনি যদি তিস্তানিউজ ২৪.কম এ প্রকাশের জন্য আমাদের ট্রেন্ডিং নিউজ প্রেরণ করতে চান তবে আসুন এখনই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আপনার নিউজটি আমাদের নিউজ রুম থেকে নিউজ ডেস্ক হিসাবে প্রকাশিত হবে। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদান্তে- আব্দুল লতিফ খান, সম্পাদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here