• Home »
  • বৃহত্তর রংপুর »
  • হাতীবান্ধায় একই স্থানে জাপা ও ছাত্র সমাজের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী: ১৪৪ ধারা জারি
হাতীবান্ধায় একই স্থানে জাপা ও ছাত্র সমাজের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী: ১৪৪ ধারা জারি
১৫ মে '১৮
0 Shares

হাতীবান্ধায় একই স্থানে জাপা ও ছাত্র সমাজের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী: ১৪৪ ধারা জারি

জাহাঙ্গীর আলম রিকো, ষ্টাফ রিপোর্টার,লালমনিরহাট// লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় এরশাদ নেতৃত্বধীন জাতীয় পার্টি ও ছাত্র সমাজের পাল্টা-পাল্টি কর্মসুচী নিয়ে টান টান উত্তোজন বিরাজ করছে। সোমবার রাতে জাতীয় পার্টির গেট ছাত্র সমাজের কর্মীরা ভাংচুর করায় যে কোনো মুর্হুত্বে রক্তক্ষয়ী সংর্ঘষের ঘটনা ঘটতে পারে। উভয় গ্রুপের নেতা-কর্মী শহরে মহড়া দিচ্ছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।হাতীবান্ধায় একই স্থানে জাপা ও ছাত্র সমাজের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী: ১৪৪ ধারা জারি

জানা গেছে, ওই উপজেলার নব গঠিত জাপার আহবায়ক কমিটির অনুষ্ঠানের গেট ভাংচুর করে দলের নেতাকর্মীদের তাড়িয়ে দিয়েছে জাতীয় ছাত্রসমাজের নেতাকর্মীরা।
এসময় মাইক আটক করে মাইকিং বন্ধ করে দেয়া হয়। পরবর্তীতে জাতীয় ছাত্র সমাজের ব্যানারে শহরে একটি মাইকিং করতে দেখা গেছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহুর্তে হামলার ঘটনা ঘটার আশংকা দেখা গেছে।
নবগঠিত আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব রেজাউল করিম বাঘ বলেন, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উপজেলা জাতীয় পার্টির নবগঠিত আহবায়ক কমিটির পরিচিত সভার আয়োজন করা হয়েছে। স্থানীয় অডিটোরিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম-১ নির্বাচনী এলাকার সমন্বয়কারী মো: মেজর (অব:) খালেদ আকতার। অনুষ্ঠান সফলে গেটসহ নানা ধরনের কার্যক্রম চলছে। কিন্তু আকস্মিক ভাবে ছাত্র সমাজের নেতাকর্মীরা এসে গেট নির্মান ও মাইকিংয়ে বাধা সৃষ্টি করে। এই ঘটনার জন্য পদত্যাগকারী নেতাকর্মীদেরই দায়ী করেন নয়া আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব রেজাউল করিম বাগ। কিন্তু এসব অভিযোগ অস্বীকার করে দল থেকে সদ্য পদত্যাগকারী নেতা মিজানুর রহমান মিলন বলেন, হামলার ঘটনার সঙ্গে আমরা জড়িত নই। জাতীয় পার্টি থেকে পদত্যাগ করে আমরা সচেতন নাগরিক ফোরাম নামে একটি অরাজনৈকি সংগঠন গঠন করেছি। সেদিন থেকে হাতীবান্ধায় জাতীয় পার্টির কবর রচিত হয়েছে। তাদের অনুষ্ঠানে যাওয়া কিংবা হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রশ্নই আসেনা।
জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর (অব:) খালেদ আকতার গায়ের জোরে রাজনীতিকে অসুস্থ্য রাজনীতি আখ্যা দিয়ে বলেন, গায়ের জোরে রাজনীতি একটা নোংরা রাজনীতির অংশ। যারা নোংরা রাজনীতি করে তারা টিকে থাকতে পারেনা। 
অপর দিকে জাতীয় ছাত্র সমাজের আহবায়ক আনোয়ার হোসেনের সাথে উভয় পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচী নিয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমরা কোন গেট ভাংচুর করিনি। আমরা আমাদের অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি মূলক পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। তাদের অভিযোগ  সত্য না। 
হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক বলেন, জাতীয় পার্টির অনুষ্ঠানের গেট নির্মানকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা দেখা দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তিনি আরো বলেন, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

About dimlanews

Related Posts

    No posts found.

Leave a Reply

*

সম্পাদকের বক্তব্যঃ

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম ভিজিট করুন এবং বিজ্ঞাপন দিন।