ডোমারে ঘূর্ণিঝড়ে ছিড়ে পড়া সেচপাম্পের বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে ১ স্কুল ছাত্র নিহত : আহত দুই

ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন, ষ্টাফ রিপোর্টার, ডোমার (নীলফামারী)// নীলফামারীর ডোমার উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঘুর্ণিঝড়ে ছিড়ে পড়া সেচ পাম্পের ছেড়া বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে সাব্বির রহমান নামের এক দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্র নিহত হয়েছে। এসময় সুমাইয়া ও রুমিনা নামের তার দুই সহপাঠিও আহত হয়। রুমিনা আশংকামুক্ত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে ও সুমাইয়া আশংকাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আজ বুধবার দুপুর দেড় টার দিকে উপজেলার বামুনিয়া ইউনিয়নের কাছারী এলাকায় বাড়ির পাশে সেচপাম্পের পড়ে থাকা ছেড়া তারে তারা জড়িয়ে যায়। সাব্বির ওই এলাকার আতাউর রহমানের ছেলে, সুমাইয়া একই এলাকার রবিউল ইসলাম ছুট্টু ও রুমিনা রবিউল আলমের মেয়ে। তারা বামুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেনীতে পড়ালেখা করে। সুমাইয়ার চিকিৎসার সকল দায়িত্ব নেয় ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা: উম্মে ফাতিমা।
এলাকাবাসী জানায়, গত ১০ তারিখের ঘূর্ণিঝড়ে বামুনিয়ায় ঘরবাড়ি, গাছপালাসহ বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বুধবার দুপুরে ক্ষতিগ্রস্থ পিডিবি’র সংযোগ মেরামত করে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়। সংযোগ দেওয়ার কিছুক্ষন পরেই কাছারী এলাকার খোলা জায়গায় পড়ে থাকা সেচপাম্পের ছেড়া তাড়ে সাব্বির জড়িয়ে যায়। এসময় তাকে বাঁচাতে সুমাইয়া ও রুমিনা এগিয়ে গেলে তারাও জড়িয়ে যায়। এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাব্বির মারা যায় এবং রুমিনা কিছুটা আশংকামুক্ত হলেও সুমাইয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। কিন্তু ঘুর্ণিঝড়ে ধান ও ঘরবাড়ি তার বাবার ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় টাকার অভাবে রংপুরে নিতে পারে নাই। ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানতে পেরে তিনি সুমাইয়ার চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। তারপর একটি বেসরকারী এ্যাম্বুলেন্সে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। বর্তমানে বিকাল পাঁচ টা পর্যন্ত সুমাইয়া রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন ছিল।
ডোমার বিদ্যুৎ বিতরন ও বিউবোর নির্বাহী প্রোকৌশলী মো: সাইফুল ইসলাম মন্ডল জানান, ঝড়ে পিডিবি’র এক শত কিলোমিটার লাইন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। আমারা প্রতিনিয়ত বিদ্যুৎ লাইন মেরামত করছি। ওই এলাকায় আজ লাইন মেরামত চলছে। মেরামত সম্পূর্ণ না হতেই তারা নিজেরাই মেইন লাইনে সংযোগ দিয়ে দিয়েছে। এজন্যই এ দূর্ঘটনা ঘটেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা: উম্মে ফাতিমা জানান, দূর্ঘটনার কথা শুনে আমি সুমাইয়ার চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়ে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠিয়েছি।#

Sardar fazlu :