• Home »
  • রাজনীতি »
  • পলাশী দিবস স্মরণে ; আজও পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে : মোস্তফা
পলাশী দিবস স্মরণে ;  আজও পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে : মোস্তফা
২৩ জুন '১৮
0 Shares

পলাশী দিবস স্মরণে ; আজও পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে : মোস্তফা

 প্রেসবিজ্ঞপ্তি:  স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও জাতীয় ঐকমত্য প্রতিষ্ঠা না হওয়ায় আজও পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া। তিনি বলেন, ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন মুর্শিদাবাদের পলাশীর প্রান্তরে যুদ্ধের নামে হয়েছিল যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা। আর এই খেলার মাধ্যমেই পলাশীতে অস্তমিত হয়েছিল বাংলার স্বাধীনতার সূর্য্য। সেদিন শাসকগোষ্টি ও দেশবাসী শুধু যার যা দায়িত্ব তা পালন না করার কারণে এবং সিরাজ-উদ-দৌলার মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের সীমাহীন দুর্নীতি-লোভ ও দুর্বৃত্তায়নের কারণেই ইংরেজ বেনিয়াদের কাছে পরাজিত হয়েছিল জাতি। আজও শাসকগোষ্টি ও রাজনীতিবিদদের ব্যর্থতার কারণে দেশ সেই দিকেই ধাবিত হচ্ছে।

শনিবার নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে ঐতিহাসিক পলাশী দিবসের ২৬১তম বার্ষিকী স্মরণে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পলাশীর মতো আজও বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিয়ে চলছে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত। সাম্রাজ্যবাদী ও আধিপত্যবাদী শক্তিগুলো বন্ধুবেশে বাংলাদেশকে পরিণত করতে চাচ্ছে করদরাজ্যে। পলাশীর বিপর্যয় তখনই ঘটেছিল যখন অর্থনীতির উপর থেকে তৎকালীন সরকারের নিয়ন্ত্রণ অন্যের হাতে চলে গিয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি বাণিজ্যের নামে এদেশে প্রবেশ করে অবশেষে দেশের স্বাধীনতা হরণ করেছিল। কেউ যেন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে না পারে সে ব্যাপারে বর্তমান সরকারসহ সব দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি ও গোষ্ঠীকে সজাগ থাকতে হবে।

ন্যাপ নগর সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন লেবার পার্টি মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, যুগ্ম মহাসচিব আবদুল্লাহ আল মামুন, গণতান্ত্রিক ঐক্যের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, তৃণমূল নাগরিক আন্দোলনের সভাপতি মুহম্মদ মফিজুর রহমান লিটন, ন্যাপ সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামাল ভুইয়া, নগর যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, যুব ন্যাপ যুগ্ম সমন্বয়কারী আবদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে মো. শহীদুননবী ডাবলু বলেন, ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন পলাশীতে মীরজাফর নবাবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেননি, কিন্তু তার ওপর প্রদত্ত দায়িত্বও পালন করেননি। নবাব সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করেছিল, তারা সবাই শাসক গোষ্ঠীর অংশ ছিল। আমরা সবাই বলি ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে হবে, অথচ কেউ আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেই না।

Print Friendly, PDF & Email

About dimlanews

Related Posts

Leave a Reply

*

সম্পাদকের বক্তব্যঃ

তিস্তা নিউজ ২৪ ডটকম ভিজিট করুন এবং বিজ্ঞাপন দিন।